মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

সাংবাদিক হাবিব রহমানের

‘ঘুরে দেখা ইউরোপ’ এখন বাজারে

প্রকাশিত: ১০:০৪, ৩১ অক্টোবর ২০২২

‘ঘুরে দেখা ইউরোপ’ এখন বাজারে

ফাইল ছবি

প্রবাসের বিশিষ্ট সাংবাদিক, বাংলা পত্রিকা বার্তা সম্পাদক হাবিব রহমানের লেখা ভ্রমণ বিষয়ক গ্রন্থঘুরে দেখা ইউরোপএখন বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। হাবিব রহমান ইতোমধ্যে বিশ্বের শতাধিক দেশ ভ্রমণ করেছেন। চষে বেড়িয়েছেন এশিয়া, ইউরোপ, আমেরিকা এবং আফ্রিকার বহুদেশ। পর্যটনের নেশা তাকে দীর্ঘদিন ঘরে থিতু হয়ে বসতে  দেয়নি। তিনি ছুটে চলেছেন একদেশ থেকে আরেক দেশে। এক মহাদেশ থেকে আরেক মহাদেশে। এসব ভ্রমণ কাহিনী বাংলা পত্রিকা সহ বিভিন্ন পত্রিকায় ইতোপূর্বে নিবন্ধ আকারে প্রকাশিত হয়েছে। এখন এগুলো একত্রিত করে সংকলিত আকারে প্রকাশের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।ঘুরে দেখা ইউরোপতার প্রথম খন্ড।

ঘুরে দেখা ইউরোপএর এই পর্বে সাংবাদিক-লেখক হাবিব রহমান  নেদারল্যান্ডস, গ্রীস, তুরস্ক, জার্মানী, আইসল্যান্ড, নরওয়ে, সুইডেন, ফিনল্যান্ড, রাশিয়া, বেলজিয়াম, ফ্রান্স, সুইজারল্যান্ড, ইতালি, ব্রিটেন, পর্তুগাল এবং স্পেনের বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানের বিবরণ তুলে ধরেছেন। যদিও প্রতিটি বিবরণ সংক্ষিপ্ত কিন্তু ঐতিহাসিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক তথ্যে ভরপুর। যারাদেশগুলো ভ্রমণে আগ্রহী তাদের জন্য বইটি চমৎকার গাইড বুক হিসাবে ভূমিকা রাখতে পারে।

যেকোন ভ্রমণ কাহিনী সাহিত্যের জনপ্রিয় একটি ধারা। একটি সার্থক ভ্রমন কাহিনী পাঠককে বিভিন্ন দেশ, বিভিন্ন নগরীর ইতিহাস ঐতিহ্য, বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থাপনা, সামাজিক সাংস্কৃতিক দিক সহ অনেক অজানা বিজয়ের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়। অনেকে ভ্রমণ করলেও  তাদের অভিজ্ঞতা লিখে যান না। সেদিক থেকেঘুরে দেখা ইউরোপএর লেখক হাবিব রহমান তাঁর ভ্রমণ কাহিনী লিখে ভ্রমণ পিপাসু মানুষদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। একদিকে তিনি তার নিজের ভ্রমণ তৃষ্ণা পূরণ করেছেন অন্যদিকে ভবিষ্যৎ ভ্রমণবিলাসীদের প্রতি তার দ্বায়বদ্ধতায়ও পরিচয় দিয়েছেন।

সাংবাদিক-লেখক হাবিব রহমান জানান, ২৭৮ পৃষ্ঠার এই বইটি প্রকাশ করেছে বাংলাদেশের নালন্দা প্রকাশনী। কলকাতার পরিবেশক সূর্যসেন স্ট্রিটেরবই বাংলা নিউইয়র্কে পাওয়া যাবে জ্যাকসন হাইটসের মুক্তধারায়। এছাড়াও অন লাইনে ৎড়শড়সধৎর.পড়স/হধষড়হফধ এবং িি.িনরড়যধুধৎফ.পড়স অর্ডার করা যাবে। এছাড়াও ০১৫১৯৫২১৯৭১ অথবা ০৯৬১১২৬২০২০ এই নাম্বারে ফোনে অর্ডার করা যাবে। চার রংয়ে বইটির নান্দনিক প্রচ্ছদ করেছেন শিল্পী ধ্রুব এষ।

শেয়ার করুন: