মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

ম্যানহাটানে ‘২৩ ডলার জরিমানা’ মানতে নারাজ ক্যাবিরা

নবযুগ রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৩:৪২, ১৪ অক্টোবর ২০২২

ম্যানহাটানে ‘২৩ ডলার জরিমানা’  মানতে নারাজ ক্যাবিরা

ফাইল ছবি

আহমদ মালিক ১৮ বছর ধরে ইয়েলো ক্যাব চালাচ্ছেন। এই দীর্ঘ সময়ে তিনি কখনো ক্যাব ইন্ডাষ্ট্রিকে নিরুৎসাহিত করতে দেখেননি। এখন তিনি আশঙ্কা করছেন, নতুন কনজেশন প্রাইসিং পরিকল্পনাটি পাস হলে তা হবে তার এবং এই পেশায় নিয়োজিত তার সহকর্মীদের অর্থনৈতিকভাবে শেষ করে দেওয়া।

মালিক একটি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘এই আইন আমাদের জন্য কল্যাণকর নয়। আমরা সবাই চিন্তায় আছি। কিন্তু আমরা কি করব? নতুন আইন পাস হলে, আমার মনে হয় না, খুব বেশি লোক ক্যাবে চড়বে। আমার মনে হয়, ড্রাইভাররা গাড়ি ছেড়ে দেবে।

মালিক থাকেন ব্রুকলিনে। তিনি পাকিস্তান থেকে এসেছেন। দিনে ১০ ঘণ্টা করে কাজ করেন, সাত দিনই তিনি গাড়ি চালান। এখন তিনি আসন্ন ভবিষ্যত নিয়ে চিন্তিত।

এমটিএর নতুন আইনটি করা হয়েছে ম্যানহাটনের ট্রাফিক জ্যাম কমানো, কালো ধোয়া হ্রাস করার জন্য। নতুন আইন জারি হলে ম্যানহাটানের অনেক রাস্তা দিয়ে ইয়েলো ক্যাব চালানো যাবে না। আইনটি লঙ্ঘন করলে থেকে ২৩ ডলার পর্যন্ত জরিমানা দিতে হবে।

তিনি বলেন, ‘এই টাকা কে দেবে? পাগল হয়ে যেতে হবে।তিনি বলেন, ২০১৯ সালে জারি করা কনজেশন ফি দিতেই নারাজ থাকে অনেক আরোহী। ফলে নতুন অর্থ দিতে তারা কোনোভাবেই রাজি হবে না।

অবশ্য এখনই নয়, ইয়েলো ক্যাব করোনাভাইরাস মহামারির সময় থেকেই দুর্ভোগে রয়েছে। প্রতিনিয়ত এই গাড়ির সংখ্যা কমেছে। অনেক চালক গাড়ি আর নামাচ্ছেন না। ২০২০ সালে এপ্রিলে এই বহরে গাড়ি কমে দাঁড়ায় ৯৮২টিতে। আর ট্যাক্সি অ্যান্ড লিমোসিজন কমিশনের সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী, বর্তমানে ,১৫৬টি ইয়েলো ক্যাব এখন সক্রিয় রয়েছে। অথচ ১০ বছর আগে সংখ্যাটি ছিল ১৩,৩২০টি।

নিউইয়র্ক ট্যাক্সি ওয়ার্কার্স অ্যালায়েন্সের নির্বাহী পরিচালক ভৈরবী দেসাই বলেন, ‘নতুন আইন হবে কফিনে শেষ পেরেক ঠোকা।তিনি বলেন, বিষয়টি হতাশাজনক। হাজার হাজার অভিবাসী চালক সমস্যায় পড়বে। তাদের নতুন কোনো চাকরি পাওয়া কঠিন হবে।

শেয়ার করুন: