বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

স্বাস্থ্য বিধি সংশোধনের প্রস্তাব

নিউইয়র্কে গর্ভপাত করা ভ্রণ  ‘মানবদেহ’ বিবেচিত হবে না

নবযুগ রিপোর্ট

আপডেট: ১৭:৫৫, ৫ জুলাই ২০২৪

নিউইয়র্কে গর্ভপাত করা ভ্রণ  ‘মানবদেহ’ বিবেচিত হবে না

ছবি: সংগৃহীত

গর্ভপাত করা ২৪ সপ্তাহের ভ্রƒণকে মানবদেহ বিবেচনা করে সেগুলোকে কবর দেওয়া কিংবা শবদাহ করার ব্যবস্থাটি বাতিল করেছে নিউইয়র্ক সিটির স্বাস্থ্য বিভাগ। 
সাধারণভাবে ২৪ সপ্তাহের ভ্রƒণ আগাম জন্মে বেঁচে থাকতে পারে বলে বিবেচনা করা হয়। এ কারণে এ ধরনের ভ্রƒণ গর্ভপাতের মাধ্যমে অপসারণ করার পর কবর দেওয়া কিংবা দাহ করার ব্যবস্থা করা হয়।

বিধানটি বাতিল করার ফলে চিকিৎসা স্থাপনাগুলো এখন থেকে ওই ভ্রƒণকে গর্ভস্থ বস্তু হিসেবে অভিহিত করে নষ্ট করে ফেলতে পারবে। এতে করে রোগী বা পরিবারকে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া আয়োজনের ায়ায়িত্ব কিংবা ব্যয়ভার বহন করতে হবে না।
স্বাস্থ্য বিভাগ এক বিবৃতিতে জানায়, তারা স্বাস্থ্য বিধি ২০৩ এবং ২০৫ সংশোধন করার প্রস্তাব করে। এর ফলে ২৪ সপ্তাহের বা এর বেশি বয়সী ভ্রƒণকে গর্ভস্থ বস্তু বিবেচনা করে নষ্ট করা হবে।  বোর্ড অব হেলথ সংক্ষিপ্ত আলোচনার পর সর্বসম্মতভাবে প্রস্তাবটি অনুমোদন করে। 
এতে আরো বলা হয়, তবে সংশ্লিষ্ট কেউ যদি কবর দেওয়া বা াহ করার ইচ্ছা প্রকাশ করে, তবে তারে ইচ্ছাকে সম্মান করা হবে।
এদিকে গর্ভপাতবিরোধীরা যুক্তি দিচ্ছে যে বিশ্বাসযোগ্য ভ্রƒণকে করব দেওয়ার অধিকার বাতিল করাটা জীবনকে অবমূল্যায়ন করার আরেকটি উদাহরণ।
জাতিসঙ্ঘে ন্যাশনাল রাইট টু লাইফ কমিটির প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী অবসরপ্রাপ্ত নিবন্ধিত নার্স জ্যাঁ হেড বলেন, ‘এটি ভয়াবহ। তারা মানুষকে আবর্জনা মনে করছে।’
তিনি বলেন, ‘এটি শিশুহত্যা। তারা চায় না যে মায়েরা জানুক যে তারা তাদের শিশুকে হত্যা করেছে।’
তবে স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, অনেক গর্ভবতী নারীর বিধ্বস্ত অবস্থা থেকে তারা দেরিতে গর্ভপাত করা নারীদের আবার কবর দেওয়ার ব্যয়ভার বহন করতে বাধ্য করতে চান না। এই ব্যবস্থায় সংশ্লিষ্টদের আরো কিছু বেদনাদায়ক পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যেতে হয়।
সর্বসাম্প্রতিক এক তথ্যে দেখা গেছে, নিউ ইয়র্ক সিটিতে প্রায় ২ শতাংশ গর্ভপাত হয় ২১ সপ্তাহের পর।
নগরীর প্রজনন পরিচর্যার সাথে সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকেরা এই পরিবর্তনকে উচ্ছ্বসিতভাবে স্বাগত জানিয়েছেন।
 

শেয়ার করুন: