বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

কোরবানীর ত্যাগের মহিমায়  ঈদুল আজহা পালিত

নিউইয়র্ক

প্রকাশিত: ১৬:১৯, ২১ জুন ২০২৪

কোরবানীর ত্যাগের মহিমায়  ঈদুল আজহা পালিত

ছবি - নবযুগ

মহান আল্লাহতায়ালার নৈকট্য আর সন্তুষ্টি লাভের প্রত্যাশায় কোরবানীর ত্যাগের মহিমায় নিউইয়র্কসহ উত্তর আমেরিকায় ঈদুল আজহা পালিত হয়েছে। ঈদের নামাজ আদায় আর কোরবানীর মধ্য দিয়ে সর্বস্তরের মুসলিম নর-নারী ঈদ পালন করেন। ছুটির দিন রোববার (১৬ জুন) ঈদের দিন হওয়ায় ঈদের জামাতগুলোতে ছিলো হাজারো মানুষের ভীড়। সিটির ৫ বরোর মসজিদগুলোর উদ্যোগে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। কোথায় কোথাও খোলা আকাশের নীচে রাস্তায় অথবা প্লে গ্রাউন্ডেও ঈদের জামাতের আয়োজন করা হয়।  

বাংলাদেশে ঈদুল আজহা পালিত হয় সোমবার (১৭ জুন)। প্রতি বছরের মতো এবছরও নিউইয়র্কে সর্ববৃহত ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয় জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার (জেএমসি) আয়োজিত স্থানীয় টমাস এডিসন স্কুলের প্লে গ্রাউন্ডে। সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত এই জামাতে সর্বস্তরের ১০/১২ হাজার নর-নারী অংশ নেন বলে সংশ্লিষ্টরা জানান। খবর ইউএনএ’র। জেএমসি’র জামাতের আগে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল নাজমুল হুদা, নিউইয়র্ক সিটি কম্পট্রোলার ব্র্যাড ল্যান্ডার, ষ্টেট অ্যাসেম্বলীম্যান জোহরান মামদানী, নয়া দিল্লিস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশনে নিযুক্ত প্রেস মিনিস্টার শাবান মাহমুদ, জেএমসি’র ট্রাষ্টি বোর্ডের  চেয়ারম্যান ডা. নাজমুল খান, পরিচালনা কমিটির সভাপতি ডা. মোহাম্মদ রহমান, সাবেক এমপি এম এম শাহীন, নিউইয়র্ক সিটির আসন্œ নির্বাচনে কুইন্সের সিভিল কোর্ট জাজ পদপ্রার্থী অমিস আর ডোসী সহ আরো অনেকে। এই পর্ব পরিচালনা করেন  সেক্রেটারি আফতাব মান্নান।
জেএমসি’র ঈদের জামাতে ইমামতি করেন মওলানা মির্জা আবু জাফর বেগ ও খুতবা পাঠ করেন ইমাম শামসে আলী। ঈদের জামাত শেষে বিশেষ মুনাজাতে মুসলিম উম্মার ঐক্য, সৌহার্দ্য-সমৃদ্ধি ছাড়াও ফিলিস্তিনীদের উপর ইসরাইলের নিপীড়ন-নির্যাতন এবং যুদ্ধ বন্ধ কামনা করা হয়। 
জ্যামাইকা: জ্যামাইকার আরাফা ইসলামিক সেন্টারের উদ্যোগে নবনির্মত মসজিদ ভবনে (৮৮-৪৯ ১৭৯ প্লেস, জ্যামাইকা, নিউইয়র্ক ১১৪৩২) ঈদুল আজহার তিনটি জামাত হয় যথাক্রমে সকাল সাড়ে ৬টায়, সকাল ৮টায় এবং ৯ টায়।
মসজিদ মিশন সেন্টারের (হাজী ক্যাম্প মসজিদ) উদ্যোগে ঈদের তিনটি জামাত অনুষ্ঠিত হয় যথাক্রমে সকাল সাড়ে ৬টায়, সাড়ে ৭টায় ও সকাল ৯টায় মসজিদ ভবনে। এখানকার তৃতীয় ঈদের জামাতের আগে উপস্থিত মুসল্লীদের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন নিউইয়র্ক ষ্টেট সিনেটর জন সি ল্যু।  
আমেরিকা মুসলিম সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় ৪টি। সকাল ৫টা ৪৫ এবং সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটে প্রথম ও দ্বিতীয় জামাত হয় এএমসি ভবনে আর তৃতীয় ও চতুর্থ জামাত হয় যথাক্রমে সকাল ৮টা ও সকাল ১০টায় স্থানীয় রুফস কিং পার্ক মাঠে।
ইকনা মসজিদের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় ২টি যথাক্রমে সকাল সাড়ে ৭টা ও সকাল সাড়ে ৮টায়।  
দারুস সালাম মসজিদের উদ্যোগে মসজিদ ভবনে ঈদের জামাত হয় ৪টি যথাক্রমে সকাল ৭টা, সকাল ৮টা, সকাল ৯টা ও সকাল ১০টায়। প্রথম জামাত ব্যতিত অন্য সকল জামাতে পুরুষদের পাশাপাশি মহিলাদেরও নামাজের ব্যবস্থা ছিলো। 
আল কুবা ইসলামিক সেন্টার অব জ্যামাইকার উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় সকাল ৮টায় সাউথ জ্যামাইকার পিএস ৫০ স্কুলের মাঠে। 
হলিস মুসলিম কমিউনিটি সেন্টারের উদ্যোগে স্থানীয় হলিস এভিনিউ ও ২০৫ স্ট্রিট সংলগ্ন পার্কে ঈদের জামাত হয় সকাল সাড়ে ৮টায়। এতে নেতৃত্ব দেন মৌলানা সাহেদ আহমদ ও শেখ মোহাম্মদ নূরুল ইসলাম। 
জ্যাকসন হাইটস: জ্যাকসন হাইটস ইসলামিক সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের দুটি জামাত হয় মসজিদ সংলগ্ন ৭৩ স্ট্রীটে (রুজভেল্ট এবং ৪১ এভিনিউর মাঝে) সকাল ৮টা ও সকাল ৯টায়।  
জ্যাকসন হাইটসের মুনা সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় খোলা রাস্তায় মসজিদ সংলগ্ন ৩৫-৩৫ ৭১ স্ট্রিটের উপর সকাল ৮টায়। 
নিউইয়র্ক ঈদগাঁহ-এর উদ্যোগে প্রতি বছরের মতো এবছরও ৫টি ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয় যথাক্রমে সকাল ৬টা, ৭টা, ৮টা, ৯টা ও ১০টায় জ্যাকসন হাইটসের ডাইভারসিটি প্লাজায়।   
ম্যানহাটানাস্থ মদিনা মসজিদের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় একই দিন সকাল সাড়ে ৮টায় মসজিদ সংলগ্ন মাঠে।
ইস্ট এলমহার্স্ট জামে মসজিদ এন্ড মুসলিম সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় সকাল সাড়ে ৮টায় স্থানীয় পিএস ১২৭ এর মাঠে। 
ওজনপার্ক: ওজনপার্কের আল ফুরকান মজিদের উদ্যোগে ঈদের দুটি জামাত হয় যথাক্রমে সকাল সাড়ে ৮টায় ও সকাল ৯টায় মসজিদের সামনে ৭৬ এন্ড গ্লেনমোর এভিনিউতে। 
ওজনপার্কের ফুলতলী ইসলামিক সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল ৮টায় স্থানীয় পিএস ৬৪ স্কুলের মাঠে (৮২ ও ৮৩ স্ট্রীট, ১০১ এভিনিউ)। 
এস্টোরিয়া: এস্টোরিয়ার আল-আমীন মসজিদ এন্ড ইসলামিক সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল ৮টায় মসজিদ সংলগ্ন স্থানীয় ৩৬  ষ্ট্রিটে (৩৬ ও ৩৭ এভিনিউর মাঝে) খোলা রাস্তায়। প্রতিকূল আবহাওয়ায় মসজিদ ভবনে ঈদের জামাত হবে তিনটি যথাক্রমে সকাল ৭টা, সকাল ৮টা ও সকাল ৯টায়। 
ব্রুকলিন: বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় দুটি যথাক্রমে সকাল ৬টায় ও সকাল ৮টায় মসজিদ ভবনে। 
ব্রুকলিনের বায়তুল জান্নাহ জামে মসজিদ এন্ড ইসলামিক সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয়ে স্থানীয় ৫৬৯ ম্যাকডোনাল্ড এভিনিউর উপর সুবিশাল রাস্তায়। প্রতিকূল আবহাওয়ায় মসজিদ ভবনে ঈদের ৫টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৬টা থেকে।
ব্রুকলিন ইসলামিক সেন্টার আল তৌহিদ মসজিদের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে স্থানীয় প্রসপেক্ট পার্কের প্যারেড গ্রাউন্ডের ফিল্ড ৮-এ।  
ব্রঙ্কস: পার্কচেষ্টার জামে মসজিদের উদ্যোগে ঈদের দুটি জামাত অনুষ্ঠিত হয় যথাক্রমে সকাল সাড়ে ৭টা ও সকাল সাড়ে ৮ টায় মসজিদ ভবন ও ভবন সংলগ্ল রাস্তার উপর। 
বাংলা বাজার জামে মসজিদের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় দুটি যথাক্রমে সকাল সাড়ে ৭টায় ও সকাল সাড়ে ৮টায় স্থানীয় পিএস ১০৬ এর মাঠে। 
ব্রঙ্কসের ক্যাসেলহিল আইডিয়াল ইসলামিক সেন্টারের উদ্যোগে ২১০০-২১৪৬ টার্নবুল এভিনিউতে ( প্লে গ্রাউন্ড) ঈদের জামাত হয় সকাল ৮টায়। 
নর্থ ব্রঙ্কস ইসলামিক সেন্টার এন্ড মসজিদের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় দুটি যথাক্রমে সকাল ৮টা ও সকাল ৯টায় স্থানীয় রিভারভিউ ওভাল পার্কে। 
বায়তুল ইসলাম মসজিদ এন্ড কমিউনিটি সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের জামাত হয় সকাল সাড়ে ৮টায়। 
জ্যাকসন হাইটস মুনা সেন্টারে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত:
নিউইয়র্ক সিটিতে বাংলাদেশিদের বাণিজ্যিক রাজধানী হিসেবে খ্যাত জ্যাকসন হাইটসে ৩৫-৩৫,৭১ স্ট্রিটে মুনা ঈদগাহে ঈদুল আযহার বিশাল জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। মুনা সেন্টার অফ জ্যাকসন হাইটস (মসজিদ নামিরাহ) আয়োজিত সেন্টারের পাশে নিজস্ব জায়গায় খোলা আকাশে নিচে অনুষ্ঠিত ঈদের নামাজের ইমামতি করেন কুরআন একাডেমি ফর ইয়ং স্কলারের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ আবু আহমেদ নূরুজ্জামান। নামাজের পূর্বে উপস্থিত মুসল্লিদের শুভেচ্ছা জানান সেন্টার পরিচালনা কমিটির সভাপতি মমিনুল ইসলাম মজুমদার। জামাতের সাবির্ক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন কায়কোবাদ কবির, নাসির উদ্দিন আহমেদ, ফখরুল ইসলাম মাছুম, ইকবাল মান্নান, হামিমুর রহমান হামিম, লোকমান হোসেন, আলমগীর হোসাইন, আজগর আলী, আতাউর রহমান, আবু হক রুমি, প্রফেসর সোলায়মান, সিদ্দিকুর রহমান, আরাফাত রহমান, আব্দুল হাকিম মিয়া, আব্দুর রহমান, আশরাফুল আলম মিলন, ফেরদৌস আলম, আকলিম চৌধুরী, আব্দুর রশিদ সানা, মিজানুর রহমান, আহসান খান, সাঈদ আহমেদ, আনোয়ার হোসেন, মোস্তাক আহমেদ প্রমুখ।

উল্লেখ্য ‘জ্যাকসন হাইটস মুনা ঈদগাহে’ খোলা আকাশের নীচে ঈদের নামাজের বিপুল সংখ্যক মুসল্লি অংশগ্রহন করেন। এতে মহিলাদের জন্য নামাজের ব্যবস্থা করা হয় মসজিদে দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায়। জামাত শেষে উপস্থিত মুসল্লিদেরকে আপ্যায়ন এবং শিশু-কিশোরদেরকে বিভিন্ন খেলনা প্রদান করা। জামাতে শিশু ও কিশোরদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত।
আরাফা ইসলামিক সেন্টারের নতুন ভবন উদ্বোধন:  চলতি বছরের পবিত্র হজের সময় ঐতিহাসিক আরাফা’র দিনে নিউইয়র্কের জ্যামাইকায় উদ্বোধন হলো ‘আরাফা ইসলামিক সেন্টার’-এর নতুন ভবন। ধর্মীয় ভাবগম্ভীর পরিবেশে শনিবার (১৫ জুন) বাদ আসর আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে দৃষ্টি নন্দন এই ভনটিতে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু হয়। এর আগের দিন শুক্রবার প্রথম জুমার নামাজ আদায় করা হয়। সর্বস্তরের বিপুল সংখ্যক মুসল্লী নর-নারী ভবনটিতে আয়োজিত জুমার নামাজ ও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নেন। এদিকে তিন তলা বিশিষ্ট আলাফা ইসলামিক সেন্টারের উদ্যোগে নবনির্মত মসজিদ ভবনে (৮৮-৪৯ ১৭৯ প্লেস, জ্যামাইকা, নিউইয়র্ক ১১৪৩২) রোববার (১৬ জুন) ঈদুল আজহার তিনটি জামাত অনুষ্ঠিত হয় যথাক্রমে সকাল সাড়ে ৭টায়, সাড়ে ৮টায় এবং সাড়ে ৯টায়।

সংশ্লিস্টরা জানান, ‘আরাফা ইসলামিক সেন্টার’টি একটি পূর্নাঙ্গ ইসলামিক সেন্টার হিসেবে প্রতিষ্ঠা ও ভবন নির্মান করা হয়েছে। এখানে ইসলামিক ক্লাস ছাড়াও নিয়মিত ওয়াক্ত নামাজ আদায়সহ অন্যান্য ইসলামিক কর্মকা- পরিচালনা করা হবে। 
আলাফা ইসলামিক সেন্টারের নবনির্মত মসজিদ ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ মুনাজাত করেন জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের ইমাম ও খতিব মওলানা মির্জা আবু জাফর বেগ। ব্যতিক্রমী এই অনুষ্ঠানে নিউইয়র্কের বিভিন্ন মসজিদের ইমাম ও মসজিদ পরিচালনা কমিটির কর্মকর্তা ছাড়াও নিউইয়র্কের জনপ্রতিনিধি, কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ এবং বিপুল সংখ্যক মুসল্লী উপস্থিত ছিলেন। 
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নিউইয়র্ক ষ্টেট সিনেটর জন ল্যু, স্থানীয় পিএস ৯৫ কিউ-এর প্রিন্সিপ্যাল কিম হিল, জাজ জনসন, নিউইয়র্ক সিটির আসন্œ নির্বাচনে কুইন্সের সিভিল কোর্ট জাজ পদপ্রার্থী অমিস আর ডোসী এবং স্থানীয় পুলিশ প্রিসেক্ট’র ডিটেকটিভ জন। অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নেন জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার পরিচালনা কমিটির সভাপতি ডা. মোহাম্মদ এম রহমান, অন্যতম পরিচালক ইমাম শামসী আলী, মসজিদ মিশন সেন্টার (হাজী ক্যাম্প মসজিদ)সহ বিভিন্ন মসজিদের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ইমাম ও হাফেজ রফিকুল ইসলাম, ইমাম জাফর, বিশিষ্ট রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী আব্দুল আজিজ, আলাফা ইসলামিক সেন্টারের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা আজিজুর রহমান, মদিনা মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি এডভোকেট নাসির উদ্দিন, সাবেক সিটি ড্যানিক মিলার, তারিকুর রহমান প্রমুখ। 
মাগরিবের নামাজের পর ‘আরাফা ইসলামিক সেন্টার’-এর চেয়ারম্যান আমীর খান ধন্যবাদ সুচক বক্তব্য রাখেন। 
অনুষ্ঠানে বক্তারা ‘আরাফা ইসলামিক সেন্টার’ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগকে স্বাগত জানান এবং জ্যামাইকায় একাধিক মসজিদ প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় এলকার পরিবেশ ভিন্নতর হয়েছে। পাশাপাশি বক্তারা বলেন, শুধু মসজিদ প্রতিষ্ঠা করলেই হবে না, এই মসজিদ পরিচালনা এবং খেদমত করতে নতুন প্রজন্মকে মসজিদমুখী করতে হবে। বক্তারা জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারটি কে নিউইয়র্ক সিটির জ্যামাইকা এলাকার ইসলামিক জাগরণের অগ্রদূত হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন, এক মসজিদ আরেক মসজিদের সাথে প্রতিযোগিতা নয়, বরং সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে ইসলামের খেদমতে কাজ করতে হবে।   
অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ‘আরাফা ইসলামিক সেন্টার’-এর ইমাম শোয়েব শেখ। আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন তারিকুল ইসলাম। 
 

শেয়ার করুন: