বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

মাদকাসক্তির অন্যতম কারণ পারিবারিক মূল্যবোধের অবক্ষয়

নবযুগ ডেস্ক 

প্রকাশিত: ০০:০৭, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

মাদকাসক্তির অন্যতম কারণ পারিবারিক মূল্যবোধের অবক্ষয়

ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে মাদক ও সন্ত্রাস বিরোধী সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেমিনারে বক্তারা মাদকাসক্তির জন্য পারিবারিক, ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক মূল্যবোধের অবক্ষয় ও পরকীয়াকে অন্যতম কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেন।

১৭ ফেব্রুয়ারি, শনিবার জামাইকার খলিল বিরিয়ানি পার্টি হলে ‘স্টপ ড্রাগস এন্ড ক্রাইমস’ শীর্ষক এই সচেতনতামূলক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারটি সন্ধ্যা সাতটায় শুরু হয়ে রাত দশটায় শেষ হয়।

এটি যৌথভাবে আয়োজন করেন নাসির খান পল, সাঈদ আল আমিন রাসেল, আহসান হাবিব ও আহনাফ আলম। সেমিনারে স্পন্সর করেন দুই রিয়েল স্টেট ব্যবসায়ী নুরুল আজিম ও আনোয়ার হোসাইন।

বক্তারা বলেন, বর্তমানে সবাই তাঁর অভীষ্ট লক্ষ্য পূরণে ব্যস্ত। নিজ নিজ কাজে সবাই এতটাই ব্যস্ত যে পরিবারকে ঠিকমতো সময় দেওয়া হয়ে উঠে না। আর এই সুযোগে পরিবারের উঠতি বয়সের ছেলে-মেয়েরা ধীরে ধীরে খারাপ সঙ্গের সংস্পর্শে আসে। এক পর্যায়ে তারা ধীরে ধীরে মাদকাসক্ত হয়ে উঠে। এর সাথে রয়েছে পারিবারিক, ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক মূল্যবোধের চরম অবক্ষয়।
 
বক্তারা আরো বলেন, বর্তমান সমাজে অনেক বিবাহিত ছেলে-মেয়ে পরকীয়ায় লিপ্ত। যারা নিজেরা সন্তান-সন্ততির পিতা-মাতা। কিন্তু পরকীয়ায় আসক্ত হয়ে যাওয়ায় তারা ঠিকঠাক মতো ছেলে-মেয়েদের সময় দিতে পারেন না। আর এতে করে তাদের ছেলে-মেয়েরা মাদকাসক্তি ও বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকা-ে জড়িয়ে যায়।

সেমিনারে একটি পরিসংখ্যান তুলে ধরে বক্তারা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে গত চার বছরে ৮৪ জন মাদকাসক্ত হয়ে মারা গেছেন। এদের মধ্যে শুধু নিউইয়র্কে মারা গেছেন ৪২ জন। যাদের বয়স ২০ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে। এই ৮৪ জনের মধ্যে বাঙালিও কয়েকজন রয়েছেন। তবে সামাজিক অবস্থানের কারণে তারা মাদকাসক্তির বিষয়টি স্বীকার করেন না। মৃত্যুর কারণকে তারা হার্ট অ্যাটাক বলে চালিয়ে দেন। যদিও মৃত্যুর প্রকৃত কারণ অতিরিক্ত মাদক সেবনের ফলে হার্ট ফেইল হয়ে যাওয়া।

মাদকাসক্তি থেকে উত্তরণ পেতে পারিবারিক বন্ধন দৃঢ় করার আহ্বান জানিয়ে বক্তারা বলেন, ছেলে-মেয়েদের সাথে বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। তাদের সাথে নিয়মিত মিশতে হবে। তারা কাদের সাথে চলাফেরা করে তা খোঁজ খবর রাখতে হবে।
সেমিনারে পুলিশের সাবেক এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, মাদকদ্রব্য কোন স্থানে বিক্রি হয় তা চিহ্নিত করতে হবে। ক্ষেত্রবিশেষে এসব জায়গা এড়িয়ে চলতে হবে।

আয়োজকরা এই ধরনের সেমিনার যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে ভবিষ্যতে আরও আয়োজন করা হবে বলে জানান।
সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন, মোরশেদ আলম, নাজমুল আহসান, মনজুর আহমেদ, ফখরুল আলম, ফাহাদ সোলাইমান, মোহাম্মদ আলী, সালেহ আহমদ, ফরিদ আলম, আকাশ রহমান, রিনা শাহ, সালমা ফেরদৌস, আজিজুল হক, রমিজ উদ্দিন প্রমুখ।

শেয়ার করুন: