বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

বাংলাদেশ প্যারেড ডে

২৩ অক্টোবরের পরিবর্তে নতুন তারিখ ঘোষণা হবে

নবযুগ ডেস্ক 

প্রকাশিত: ১৩:১৬, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩

২৩ অক্টোবরের পরিবর্তে নতুন তারিখ ঘোষণা হবে

বাংলাদেশ প্যারেড উপলক্ষ্যে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন জেবিবিএ’র সভাপদি গিয়াস আহমেদ

নিউইয়র্কের বাংলাদেশি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ ডে প্যারেড। বাংলাদেশ ডে প্যারেডের প্রস্তুতি নিয়ে গত ১২ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে আহবায়ক কমিটি। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কমিটির আহবায়ক নূরুজ্জামান সর্দার এবং শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব শাহ শহীদুল হক।

ছাড়াও বক্তব্য রাখেন জেবিবিএ সভাপতি গিয়াস আহমেদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আসেফ বারী টুটুল, বাংলাদেশের জনপ্রিয় শিল্পী বেবী নাজনীন এবং ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সোবহান। বাংলাদেশ ডে প্যারেডের প্রথমে তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছিলো ২৩ অক্টোবর। যা জ্যাকসন হাইটস থেকে একটু দূরে, ৬১ স্ট্রিটে, তা ছাড়াও প্রস্তুতিও চূড়ান্ত ছিলো না। যে কারণে আলাপ- আলোচনার মাধ্যমে পরে নতুন তারিখ ঘোষণা করা হবে। তবে নতুন তারিখে বাংলাদেশ যে প্যারেড জ্যাকসন হাইটসের প্রাণ কেন্দ্রেই অনুষ্ঠিত হবে।

লিখিত বক্তব্যে নূরুজ্জামান সর্দার প্রথমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং সকল বীর শহীদদের শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন এবং বলেন, বাংলাদেশের সাথে রক্তের এবং প্রাণের সাথে জড়িয়ে আছে। তাইতো হাজার মাইল দূরে থাকলেও আমরা সারাক্ষণ বাংলাদেশকে লালন করি। যে কারণে বাংলাদেশ, বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতিকে তুলে ধরার লক্ষেই আমরা বাংলাদেশ ডে প্যারেড করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি। এই আয়োজনে আমরা আপনাদের সহযোগিতা কামনা করছি।

গিয়াস আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ ডে প্যারেড করা বড় কথা নয়, বড় কথা হচ্ছে এই প্যারেডকে সফল এবং স্বার্থক করা। আমরা যেহেতু স্থান জ্যাকসন হাইটসের প্রাণকেন্দ্রে পাইনি। আমরা আরো অপেক্ষা করি। আমরা সকলে মিলে পুলিশের সাথে বৈঠক করবো এবং জ্যাকসন হাইটসেই বাংলাদেশ প্যারেড করবো।

আসেফ বারী টুটুল বলেন, এটি আমরা দলমত নির্বিশেষে করতে চাই। বাংলাদেশ ডে প্যারেড হতে হবে সার্বজনীন। সে জন্য প্রয়োজনে আমাদের আরো সময় নেয়া দরকার। বাংলাদেশ ডে প্যারেডকে সফল করতে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

বেবি নাজনীন বলেন, এই উদ্যোগ খুবই ভাল তবে আয়োজকরা যেভাবে করতে চাচ্ছেন তা সেভাবে হবে না। কারণ আমি বহু প্যারেডে গিয়েছি। প্যারেড করতে হলে গ্র্যান্ড মার্শাল লাগে, এটিকে কালারফুল করতে হবে। শাহ শহীদুল হক বাংলাদেশ প্যারেডে সবার সহাযোগিতা কামনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফরিদা ইয়াসমীন, ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল খালেক, শো টাইম মিউজিকের প্রেসিডেন্ট আলমগীর খান আলম, হাসান জিলানী, নার্গিস রহমান, সবিতা দাস, বাবলি হক, তরিকুল ইসলাম মিঠু, সিপিএ চিশতি, কোর ক্রেডিটের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আবুল কাশেম প্রমুখ।

শেয়ার করুন: