মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

বন্দীদের ছেড়ে দিতে নিউইয়র্কে নতুন আইন!

নবযুগ রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০০:১৩, ৩০ অক্টোবর ২০২২

বন্দীদের ছেড়ে দিতে নিউইয়র্কে নতুন আইন!

ফাইল ছবি

নিউইয়র্ক সিটির কারাগারগুলোতে বন্দী হয়ে থাকা লোকদের সংখ্যা কমাতে নতুন একটি আইন প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। সিটি কাউন্সিল মেম্বার কারলিনা রিভেরা, কাউন্সিল মেম্বার শাহানা হানিফ কাউন্সিল স্পিকার অ্যান্ড্রিনা অ্যাডামস আইনটি উপস্থাপন করার পরিকল্পনা করেন।

কাউন্সিলে আইনটি পাস হলে এবং তাতে মেয়র অ্যারিক অ্যাডামস সই করলে প্রতিটি বরোর জন্য একটি করে জেল পপুলেশন রিভিউ টিম গঠন করবে মেয়রের অফিস অব ক্রিমিনাল জাস্টিস।

এসব টিমের সদস্য হবেন কারেকশন ডিপার্টমেন্ট, এমওসিজে, কারেকশনাল হেলথ সার্ভিসেস, ডিপার্টমেন্ট অব প্রবেশন এবং সরকারি আইনজীবী।

তারা মাসে দুবার মিলিত হয়ে প্রতিটি ব্যক্তির বিষয় যাচাই করে তার মুক্তির ব্যাপারে সুপারিশ করবে।

রিকার্স আইল্যান্ডে চলমান সঙ্কটের প্রেক্ষাপটে নতুন বিলটি সামনে এলো।

চলতি বছর ডিওসি হেফাজতে কিংবা হেফাজত থেকে মুক্তির পরপরই ১৭ ব্যক্তি মারা গেছে। গত বছর সংখ্যাটি ছিল ১৬।

মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি, এবং সেইসাথে বসবাসের খারাপ অবস্থা, স্টাফদের অনুপস্থিতি, অনিয়ন্ত্রিত সহিংসতার কারণে লিগ্যাল এইড সোসাইটি এবং নিউইয়র্ক সিটি কম্পট্রোলার ব্র্যাড ল্যান্ডারসহ অনেক নির্বাচিত কর্মকর্তা কারাগারটিকে ফেডারেল নিয়ন্ত্রণে রাখার আহ্বান জানাচ্ছেন।

কাউন্সিলের কমিটি অন ক্রিমিনাল জাস্টিজের চেয়ার রিভেরা বলেন, ‘আমাদের নগরীর কারাবন্দীর সংখ্যা নিরাপদে হ্রাস করার জন্য আমাদের দরকার সক্রিয়ভাবে কাজ করা। ২০২৭ সাল নাগাদ রিকার্সকে বন্ধ করতেই হবে কিংবা রিকার্সে বন্দীপ্রতি ১০ হাজার ডলার খরচ হয় বলেই নয়, বরং বন্দী সংখ্যা এজন্য কমাতে হবে যে অনেকে সেখানে থাকার মতো লোক নন এবং তারা আমাদের সমাজের জন্য কোনো ধরনের হুমকি সৃষ্টি করেন না।

তিনি বলেন, বর্ণবাদী জাতিগত সংখ্যালঘুদের প্রতি যখন প্রাতিষ্ঠানিকভাবে অবিচার করা হয়, তখন আমাদের নগরী সমস্যায় পড়ে।

গত অক্টোবরের হিসাব অনুযায়ী, নিউইয়র্ক সিটির কারাগারে বন্দীর সংখ্যা ,৮৪৯ জন।

বন্দীদের নিরাপদে মুক্তি দিয়ে অনেক জায়গায় সুফল পাওয়া গেছে। উদাহরণ হিসেবে মিনেসোটার হেনপিন কাউন্টির কথা বলা যায়।

শেয়ার করুন: