বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

ই-সিগারেট মামলা

২৭ মিলিয়ন ডলার  পাচ্ছে এনওয়াইসি

হেলিম আহমেদ

প্রকাশিত: ২০:০৯, ১৪ জুন ২০২৪

২৭ মিলিয়ন ডলার  পাচ্ছে এনওয়াইসি

ছবি: সংগৃহীত

ই-সিগারেট-সংশ্লিষ্ট একটি মামলার অংশ হিসেবে নিউইয়র্ক সিটি ২৭ মিলিয়ন ডলার পেয়েছে। মামলাটি নিষ্পত্তি হয়েছে ৪৬২ মিলিয়ন ডলারে। ‘জুল’ বেশ কয়েকটি রাজ্যে অপ্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ‘ভ্যাপিং মহামারি’ ছাড়াচ্ছে মর্মে দায়ের করা অভিযোগ নিষ্পত্তির প্রেক্ষাপটে এই অর্থ পাওয়া গেছে।

ওই মামলার নিষ্পত্তিতে নিউইয়র্ক রাজ্য পেয়েছে ১১২.৭ মিলিয়ন ডলার। নিউইয়র্ক সিটি তার আলোকে ওই অর্থ পেয়েছে।
এই অর্থ অপ্রাপ্ত বয়স্কদের মধ্যে ভ্যাপিং কমানো ও প্রতিরোধ কর্মসূচিতে ব্যয় করা হবে। অ্যাটর্নি জেনারেল লেলিটিয়া জেমস বলেন, ‘জুল হলো দেশব্যাপী জনস্বাস্থ্য সঙ্কট। ক্ষতিহীন কিছু বিবেচনা করে বাচ্চাদের হাতে নেশাজাতীয় পণ্য তুলে দেওয়া হচ্ছে।’
প্রাপ্ত অর্থের মধ্যে ২৭ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করা হবে শিশুদের ভ্যাপিং থেকে ম্ক্তু করার কাছে। 
সমঝোতা অনুযায়ী, জুল একইসাথে ক্যালিফোর্নিয়া, ম্যাসাচুসেটস, কলোরাডো, ইলিয়নস, নিউ মেক্সিকো এবং ডিস্ট্রিক্ট অব কলম্বিয়াকেও অর্থ প্রধান করছে।
তবে এসব রাজ্য কী পরিমাণ অর্থ পাচ্ছে, তা জুল প্রকাশ করেনি।
উল্লেখ্য, জুল ২০১৫ সালে ই-সিগারেট চালু করে। এর ফলে নিউইয়র্ক সিটির হাই স্কুল ছাত্রদের মধ্যে এর ব্যবহার তিনগুণ বেড়ে যায়। ২০১৪ সালে যেখানে ছিল ৮.১ ভাগ, ২০১৮ সালে তা হয় ২৩.৫ ভাগ।
তবে ২০১৯ সালে দেশব্যাপী ভ্যাপিং-সংশ্লিষ্ট অসুস্থতা মারাত্মকভাবে বেড়ে যায়। এ সময় আড়াই হাজারের বেশি লোক হাসপাতালে ভর্তি হয় বলে অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিস জানায়।
ব্রঙ্কসের যজম কিশোর ভ্যাপিং-সংশ্লিষ্ট অসুস্থতায় মারা যাওয়ার এক মাস পর ২০১৯ সালে নিউইয়র্কের অ্যাটর্নি জেনারেল লতিশিয়া জেমস মামলাটি করেন।
এ ব্যাপারে জুল মন্তব্য করার অনুরোধে সাড়া দেয়নি।
 

শেয়ার করুন: