শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

বাংলাদেশি আমেরিকান এনওয়াইসিটি এম্প্লোয়িস’র ফ্যামিলি নাইট

নবযুগ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৩:২৪, ২০ জানুয়ারি ২০২৩

বাংলাদেশি আমেরিকান এনওয়াইসিটি এম্প্লোয়িস’র ফ্যামিলি নাইট

বাংলাদেশি আমেরিকান এনওয়াইসিটি এম্প্লোয়িস’র ফ্যামিলি নাইট

নিউইয়র্ক নগরীতে প্রতি বছরই বাড়ছে বাংলাদেশিদের সংখ্যা। এখানকার সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরে নানা পেশায় যুক্ত হচ্ছেন তারা। এর মধ্যে একটি বিশাল অংশ রয়েছে যারা এখানকার নিউইয়র্ক সিটি ট্রানজিট বা এমটিএতে কর্মরত। তারা প্রতিদিন নিউইয়র্ক সিটির সর্বসাধারণকে সেবা দিয়ে আসছেন। এসব লোকদের নিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশি আমেরিকান এনওয়াইসিটি এ্যাম্পয়িসর।

প্রথমবারের ন্যায় অনুষ্ঠিত উডসাইডের গুলশান টেরেসের এই অনুষ্ঠানের আয়োজকদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন আজাদ তালুকদার, রোকসানা বেগম, রুশদি হক, জুবায়ের আহমেদ, শামীম আহমেদ, সাফওয়ান চৌধুরী, সাইফ আজাদ, দীপক দাস, গোপাল দাস, এনামুল হক জনি, মোহাম্মদ মাসুম, নাজিম উদ্দিন, ফারহানা চৌধুরী এবং আহনাফ আলম।

ফ্যামিলি নাইটের উদ্বোধন করেন আজাদ তালুকদার। কয়েক পর্বের এই অনুষ্ঠানের তারেক আহমেদ আহনাফ আলমের সঞ্চালনায় অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন টিডব্লিউ লোকাল-১০০ এর সাবেক প্রেসিডেন্ট টনি ওটানো, বর্তমান প্রেসিডেন্ট রিচার্ড ডেভিড, ইউটিএল প্রেসিডেন্ট মারিও বুচ্যারি, ক্যানেথ বালিয়ার, নিউইয়র্ক স্টেট সিনেটর জন লু, নিউইয়র্কের প্রথম মুসলিম এবং বাংলাদেশী আমেরিকান কাউন্সিল ওম্যান শাহানা হানিফ, নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনসুলেটের ডেপুটি কনসাল জেনারেল নাজমুল হাসান, কুইন্স ডেমোক্র্যাটিক এ্যাট লার্জ বিশিষ্ট এটর্নী মঈন চৌধুরী, পুশিল অফিসার লুথ্যারেন্ট কমান্ডার শামসুল হক, লুথ্যারেন্ট ফখরুল ইসলাম, লুথ্যারেন্ট মাহবুবুর খান, নিউইয়র্ক সিটির ডেপুটি পাবলিক এডভোকেট তারিক আহমেদ। বছর এমটিএতে প্রথম বাংলাদেশী আমেরিকান (পুরুষ) মোহাম্মদ আলী এবং মহিলা নীনা রহমানকে সম্মাননাসূচক ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে কাউন্সিল ওম্যান শাহানা হানিফ বলেন, আপনাদের সহযোগিতায় আমি প্রথম মুসলিম প্রথম বাংলাদেশী আমেরিকান কাউন্সিলওম্যান নির্বাচিত হয়েছি। আপনাদের জন্য আমি কাজ করতে চাই। ইতিমধ্যে আমি ৬টি বিল পাশ করিয়েছি। আগামীতে ইমিগ্র্যান্ট কমিউনিটির স্বার্থে কাজ করতে চাই।

ডেপুটি কনসাল জেনারেল নাজমুল হাসান বলেন, বাংলাদেশী আমেরিকানও এই দেশের বা এই সিটির উন্নয়নে কাজ করছে এটি ভেবে সত্যিই ভালো লাগছে।  তিনি বলেন, আপনাদের মনে রাখতে হবে আপনারা সত্যিকারের বাংলাদেশের প্রতিনিধি। তাই বৈধ পথে অর্থ প্রেরণ করে দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখবেন। আপনাদের যে কোনো প্রয়োজনে কনসুলেট পাশে থাকবে।

এটর্নী মইন চৌধুরী বলেন, আজকের অনুষ্ঠানটি সম্পূর্ণ ভিন্ন। এই অনুষ্ঠানে আসতে পেরে আমার কাছে ভাল লাগছে। আমি এজন এটর্নী হলেও আমি একজন রাজনীতিবিদ। আপনাদের যে কোন কাজে আমি সহযোগিতা করতে চাই। তিনি অনুষ্ঠানে আয়োজকদের পরিচয় করিয়ে দেন।

অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক পর্বে সঙ্গীত, নৃত্য, কবিতা আবৃত্তি কৌতুক পরিবেশন করেন গোপাল দাস, অপর্ণা রয়, সুপ্তি, সানভি, অশোক ব্যানার্জি, জামিলুর রহমান, অসীম সাহা, ইয়াসমীন রহমান, মাসতুল্লাহ, কাঞ্চন দাস, বাংলাদেশের জনপ্রিয় শিল্পী তনিমা হাদী, মিতু মাহমুদ।

শেয়ার করুন: