বৃহস্পতিবার, ০৮ জুন ২০২৩

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

ধানমন্ডিতে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতা–কর্মীদের সংঘর্ষ

ঢাকা অফিস:

আপডেট: ১৯:৫০, ২৩ মে ২০২৩

ধানমন্ডিতে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতা–কর্মীদের সংঘর্ষ

সংগ্রহীত

পদযাত্রা কর্মসূচি থেকে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য শেখ রবিউল আলমসহ কয়েকজনকে আটকের পর রাজধানীর সাইন্সল্যাব মোড়ে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়েছে দলটির নেতাকর্মীরা।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে বিএনপি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের পদযাত্রার শেষের দিকে সাইন্সল্যাব মোড় থেকে ওই নেতাকর্মীদের আটক করে পুলিশ।


এরপরই পুলিশের সাথে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ শুরু হয়। এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন বিএনপি মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান।

আজ বেলা ৩টার পরদিকে ধানমন্ডিতে বাংলাদেশ মেডিক্যাল কলেজের সামনে থেকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির এ পদযাত্রা শুরু হয়। পদযাত্রাটি সাত মসজিদ রোড, রাইফেল স্কয়ার, ঢাকা সিটি কলেজ, সাইন্সল্যাব, বাটা সিগন্যাল ও কাঁটাবন মসজিদের সামনে গিয়ে শেষ হওয়ার কথা ছিল।

 

ঢাকার ধানমন্ডিতে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতা–কর্মীদের সংঘর্ষ হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিকেল পৌনে চারটার দিকে ধানমন্ডির সায়েন্স ল্যাব এলাকায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষের একপর্যায়ে পুলিশের দিকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন বিএনপির নেতা–কর্মীরা। তাঁদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে পুলিশ।

এ সময় ওই এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। লোকজন ছোটাছুটি শুরু করেন। এ ঘটনার আগেই ওই এলাকায় যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এ ঘটনার জন্য পুলিশ ও বিএনপি নেতারা পরস্পরকে দোষারোপ করছেন। বিএনপির অভিযোগ, তাদের শান্তিপূর্ণ পদযাত্রা আটকে পুলিশ লাঠিপেটা করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। আর পুলিশ বলছে, বিএনপির মিছিল থেকে পুলিশের ওপর হামলা চালানো হয়েছে।

সংঘর্ষের সময় বিএনপির ধানমন্ডি থানার সাবেক সভাপতি রবিউল ইসলাম, ওই থানা শাখার সাবেক সদস্যসচিব সৈকতসহ কয়েকজনকে পুলিশ আটক করেছে বলে দলটির নেতারা জানিয়েছেন।


সরকারের পদত্যাগসহ ১০ দফা দাবিতে আজ বিকেলে ঢাকার দুই এলাকায় বিএনপির দুটি পদযাত্রার কর্মসূচি ছিল। একটি ছিল ধানমন্ডিতে, অন্যটি গাবতলী এলাকায়। বেলা তিনটায় ধানমন্ডির বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সড়কে সমাবেশ শেষে পদযাত্রা শুরু হয়। পদযাত্রা জিগাতলা, সিটি কলেজ হয়ে ল্যাবএইড হাসপাতাল পর্যন্ত গিয়ে শেষ হওয়ার কথা ছিল।
 
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, পদযাত্রা নিয়ে তাঁরা সিটি কলেজ এলাকায় যেতেই পুলিশ আটকে দেয়। একপর্যায়ে পুলিশ নেতা–কর্মীদের লাঠিপেটা করে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিএনপির কর্মী-সমর্থকেরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। একপর্যায়ে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়ে তাঁদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

ধানমন্ডির পদযাত্রা-পূর্ব সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম বলেন,  শান্তিপূর্ণভাবে পদযাত্রা হলো। কী কারণে পুলিশ টিয়ারশেল মারল, গুলি করল বুঝলাম না। 

 
এ বিষয়ে পুলিশের নিউমার্কেট অঞ্চলের সহকারী কমিশনার শরীফ মোহাম্মদ ফারুকুজ্জামান  বলেন, শান্তিপূর্ণভাবেই পদযাত্রা হচ্ছিল। হঠাৎ করে মিছিল থেকে পুলিশের ওপর হামলা হয়। পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য টিয়ারশেল নিক্ষেপসহ যা যা করার আমরা সেটা করেছি। 

শেয়ার করুন: