রোববার, ১৬ জুন ২০২৪

সাপ্তাহিক নবযুগ :: Weekly Nobojug

এইচআইভি  পরীক্ষা বিল  পাস হচ্ছে

নবযুগ রিপোর্ট

আপডেট: ১৭:০৫, ৭ জুন ২০২৪

এইচআইভি  পরীক্ষা বিল  পাস হচ্ছে

ছবি: সংগৃহীত

এইডস মহামারির ভয়াল রূপ দেখা গিয়েছিল ১৯৮০-এর দশকে। ওই সময় কারো এইচআইভি শনাক্ত হওয়া মানে ছিল মৃত্যুর পরোয়ানা জারি। এখন চিকিৎসা গবেষণার ব্যাপক উন্নয়নের ফলে এইআইভি ও এইডস নিয়েই পরিপূর্ণ জীবনযাপন করা সম্ভব।
এই প্রেক্ষাপটেই পালিত হলো লং-টার্ম সারভাইভর্স ডে। এই রোগ নিয়ে যারা এখনো বেঁচে আছেন, তাদের প্রতি সম্মান জানাতেই দিবসটি উদযাপিত হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে কেবল নিউইয়র্ক এবং নেভেদা রাজ্যই সিডিসি নির্দেশিকা অনুযায়ী এইচআইভি পরীক্ষা করা হয় না। আক্রান্ত হয়েও দীর্ঘ দিন বেঁচে থাকা এবং আলবানি ড্যামিয়েন সেন্টারের নির্বাহী পরিচালক পেরি জানজুলাস মনে করেন, এটি অগ্রহণযোগ্য।
তিনি বলেন, ‘আমার যখন এইচআইভি শনাক্ত হলো, আমি নিজের যতœ নেওয়ার কথা ভাবলাম। নিজেকে শেখালাম এবং কী করতে হবে, বুঝলাম। কিন্তু আমরা এটিই অন্যদের করতে দিচ্ছি না। এটা একটা অপরাধ।’
সিডিসির তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি সাতজনের একজন জানেন না যে তিনি এই রোগে আক্রান্ত।
এমন প্রেক্ষাপটে অ্যাসেম্বলি সদস্য অ্যামি পলিন এবং স্টেট সিনেটর ব্র্যাড হয়লম্যান-সিগ্যাল যে বিলটি স্পন্সর করেছিলেন, তা চলতি সপ্তাহেই পাস হতে পারে। এটি এইচআইভি এবং এইডস রোগীদের জন্য খুবই ফলপ্রসূ হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 
হয়লম্যান-সিগ্যাল বলেন, নিউইয়র্কের বর্তমান আইনটি ‘সেকেলে’। তিনি বলেন, ‘জ্ঞানই শক্তি এবং এটিই এইচআইভি/এইডসের বিরুদ্ধে লড়তে সত্যিকারের শক্তি যোগাবে।’
সিনেটরের অফিস জানায়, তারা আশাবাদ যে বিলটি সবার ভোট পেয়ে পাস হবে। আর সিনেটে তা পাস হলে তা গভর্নরের অফিসে যাবে সই হতে। তিনি তা অনুমোদন করবেন কিংবা ভেটো দেবেন।
 

শেয়ার করুন: